ঢাকারবিবার , ২৮ নভেম্বর ২০২১
  1. গল্প
  2. চারপাঁশে
  3. ভালবাসার খুনসুটি
  4. ভালবাসার গল্প
  5. রাজ রানী

স্বপ্নের রানী সেই তুমি পর্ব-৪

গল্পিবাজ ডেস্ক
নভেম্বর ২৮, ২০২১ ৬:৫৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রানী সেই! আমার সবথেকে বেশি ভালো লাগতো মেথি লাজুক চোখ দুটো আমি বিশেষ করে ওর চোখের প্রেমে পড়ে থাকতাম আমি ওর দিকে অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকতাম মেয়েটির মাঝে মাঝে মুচকি হাসলো আমি বুঝতে পারতাম আমি আমার লজ্জা পেয়ে চোখ ঘুরিয়ে ফেললাম। রানী সেই! মেয়েটি আমাকে প্রশ্ন করে বসলো আপনি সারাক্ষণ আমার মুখের দিকে তাকিয়ে থাকেন কেন আমি বললাম এমনিতেই তাকিয়ে থাকা কি অপরাধ?

আমি মেয়েটিকে বললাম আচ্ছা আমিতো তোমাকে মেনে নিলাম গার্লফ্রেন্ড হিসেবে আমি যদি অথর প্রেম করিয়ে তোমার সমস্যা আছে মেয়েটি বলল সমস্যা নেই তবে সমস্যার বড়টা হবে কারণ আমি চাইনা আমার বয়ফ্রেন্ডকে না আমি যাকে ভালোবাসি সে অন্য কোন মেয়ের দিকে তাকা এটা আমি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারবো না, আমি বললাম ও আচ্ছা তাহলে তুমি এটা কোনোভাবেই মেনে নিচ্ছ না।

অতঃপর মেয়েটি বলল আমি আর আপনি আপনি করে বলতে পারব না এখন কিন্তু আপনি আমার ভাইয়া না আমি আপনাকে আগে ভাইয়া দেখেছি অবশ্য এখন আপনি আমার একটা প্রিয় মানুষ সারা জীবন একসাথে থাকার মানুষ আমি আপনাকে তুমি করে ডাকবো আমি বললাম এই ভার্সিটিতে আমাকে সবাই আপনি করে ডাকে আর তুমি এখানে আমার জুনিয়র হয়ে তুমি বলে ডাকলে অন্যদের কাছে আমার সম্মান হারাতে হবে।

আরো পড়ুনঃ  স্বপ্নের রানী সেই তুমি পর্ব-৫

মেয়েটি বললো আজব তো আমি ভার্সিটিতে বসে আপনাকে তুমি বলে কেন ডাকব আমিতো শুধু আমাদের যখন কথোপকথন হয় যখন দেখা হয় তখন শুধু তুমি বলে ডাকবো আদারোয়াইজ ভার্সিটিতে বসে কোন প্লেসে বসে অবশ্যই আপনি করে ডাকবো আমি বললাম একটা বুদ্ধিমানের মত কথা বলেছ। রানী সেই! মেয়েটি বলল আমি তো অনেক আগে থেকেই বুদ্ধিমান আমি বললাম হ্যাঁ তুমি খুবই বুদ্ধিমান এটা আমি বুঝতে পেরেছি তোমার বুদ্ধির প্রশংসা করতে হবে মেয়েটি বলল হ্যাঁ প্রশংসা না করে কোথায় যাবা তুমি।

স্বপ্নের রানী সেই তুমি পর্ব-৫

মেয়েটি বলল আচ্ছা তুমি কিন্তু আমার সম্পর্কে কোনো কিছু কখনো জানতে চাচ্ছ না আমি কারণ জানতে পারি আমি বললাম নির্দিষ্ট কোন কারণ নেই কারণ হচ্ছে আমি শুধু তোমাকে ভালোবাসি তোমার ব্যক্তিগত কোন ব্যাপার পারিবারিক কোন কিছু জানার আগ্রহ এজন্য প্রকাশ করছি না তোমার পারিবারিক কোনো সমস্যা থাকতে পারে সেটা তো তোমার দুর্বল পয়েন্ট সেগুলো আমি জানতে চাই না।

মেয়েটি বলল আমরা মধ্যবিত্ত প্রচুর ধনী লোক নয় আমরা চট্টগ্রামে থাকে ভাষা ভাড়া করে আমাদের দেশের বাড়ি কুমিল্লাতে। আমি বললাম আমরা ও চট্টগ্রামে থাকি বাসা ভাড়া করে বিগত চোদ্দ বছর ধরে এখানে আসি আমাদের নির্দিষ্ট কোন ফ্লাট নেই চট্টগ্রামের আমাদের দেশের বাড়ি বরিশালে তাহলে তো ঠিকই আছে সব এখানে তো মধ্যবিত্ত বা বড়লোক কেউ না আমরা দুজনেই পয়েন্টে আছে। মেয়েটি বলল হ্যাঁ ঠিক।

আরো পড়ুনঃ  স্বপ্নের রানী সেই তুমি পর্ব-২

আমি বললাম তোমাকে একটা কথা আমার বলতে হচ্ছে সেটা হল কখনো কারো কথায় আমাকে ভুল বুঝবে না কখনো আমার পিছনে কেউ কিছু বললে সেটা নিয়ে তুমি প্রতিবাদ করতে আসবে না কখনো আমার নামে খারাপ কথা শুনলে সেটা তুমি যাচাই না করে নিজের মতো করে রাগ করা অভিমানী ভুল গুলো করবে না। রানী সেই! এভাবে আরো কিছু বিষয়কে জানালাম রুপা বললো আচ্ছা ঠিক আছে অবশ্যই আমি এগুলো মেনে চলবো।

আমারে জন্য ভালো লাগছে আপনার সব কথাগুলো একদম ঠিকঠাক ভাবে শুনছে আমাকে খুব বেশি মানছে বিষয়গুলো আমার খুবই ভালো লাগছে। অতঃপর আমরা এখন বাসায় ফিরব তাই রুপাকে আমি বললাম এখন আমাকে ফিরতে হবে অনেক সময়ে এখানে অপেক্ষা করেছি এখানে আড্ডা দিয়েছি আজকের মত আমাকে যেতে হবে আবার রাতে ফোনে কথা হবে এভাবে আমরা প্রতিনিয়ত অনেক রাত পর্যন্ত ফোনে কথা বলতাম কলেজে এসে ক্যান্টিনে বসে বিভিন্ন জায়গায় বসে আড্ডা দিতাম বিষয়গুলো অনেকেই ফলো করতো হয়তো বা আমি বুঝতে পারতাম অনেকেই ফলো করতো কিন্তু তেমন অভিযোগ কেউ করোনা।

আরো পড়ুনঃ  স্বপ্নের রানী সেই তুমি পর্ব-৭

আমাদের ভার্সিটিতে আরো অনেক ছেলে মেয়েরা আছে তারা রিলেশন এর মধ্যে আবদ্ধ তারা এরকম রিলাক্সে একদম ফুল ফ্রি ভাবে হাত ধরে হাঁটা চলা করে অবশ্য তাদের মতো আমরা হাত ধরে আলোচনা করি না। রানী সেই! লাইফের প্রথম বার মেয়েদের সাথে হাঁটাহাঁটির অভ্যাস আমার হচ্ছে অবশ্য আমি অভ্যস্ত নয়। রানী সেই! এভাবে আমাদের দিন চলতে থাকে অবশ্য আমাদের লেখাপড়ার সমস্যা হচ্ছে মেলা রাত পর্যন্ত কথা বলা তারপর ঘুমানো আবার সঠিক দিন দিন এলোমেলো হয়ে যাচ্ছে কিন্তু দিন দিন আমি ওর প্রেমে আটকে যাচ্ছে বুঝতে পারছিনা কি করবো।

এই গল্পের পরবর্তী পর্ব পড়তে এখানে ক্লিক করুন এবং গল্পটি কেমন ছিল আপনার মতামত জানাতে অবশ্যই ভুল করবেন না কেননা আপনার মতামতের উপর ভিত্তি করে এই গল্পের বাকি অংশটুকু তৈরি হবে।