ঢাকাশুক্রবার , ২৬ নভেম্বর ২০২১
  1. গল্প
  2. চারপাঁশে
  3. ভালবাসার খুনসুটি
  4. ভালবাসার গল্প
  5. রাজ রানী

ভালবাসার তাজমহল পর্ব-৩

গল্পিবাজ ডেস্ক
নভেম্বর ২৬, ২০২১ ৮:৩৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ভালবাসার তাজমহল গল্পের পূর্ববর্তী পর্ব গুলো পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

আম্মু বললো আচ্ছা ঠিক আছে মনির কাছে একটু ফোনটা দেন একটু কথা বলি আমি বুঝতে পারলাম গুড়িয়াকে ওপাশ থেকে ডাক দিচ্ছে কিন্তু মুনিয়া বলছি কে ফোন দিয়েছে যখন বলল আরিফের আম্মা ফোন দিয়েছে তখন মুনিয়া বলছেন না আমার ভালো লাগছে না কথা বলতে তুমি কথা বলো আমি বুঝতে পারলাম মুনিয়া অনেক রেগে আছে আমি বললাম আম্মুর সাথে একটু কথা বলতে চাই তুমি একটু কথা বলিয়ে দাও পরে আম্মু বলল ভাবী আপনি ওর কাছে গিয়ে একটু ফোনটা দেন আমি একটু কথা বলব পরে ওর আম্মুর কাছে গেল এবং ফোনটা দিল এবং ওর আম্মুর সম্ভবত রুম থেকে বেরিয়ে চলে আসলো। ভালবাসার তাজমহল

মুনিয়ার কাছে ফোন দেয়ার পরে মুনিয়া কোন কথা বলছে না এপাশ থেকে আম্মু হ্যালো ভালো করছে পরে বলছে আন্টি কেমন আছেন আম্মু বলল তুমি কই ভালো রাখলে কি হয়েছে আরিফের সাথে তোমার তোমার ফোন বন্ধ কেন মুনিয়া কোন কথা বলছে না এরপর আম্মুর হাত থেকে ফোনটা টেনে নিয়ে আমি বললাম তুমি কি মানুষকে খুন করতে চাচ্ছ? ভালবাসার তাজমহল

আরো পড়ুনঃ  ভালবাসার তাজমহল পর্ব-৮

ওপাশ থেকে মুনিয়া কোন কথা বলছে না আমি বলছি তুমি কথা বলছো না কেন যদি ভালো না লাগে তাহলে বলে দাও আমি মরে যাই মুনিয়া বলল তোমার মরতে হবে না আমি মরে যাচ্ছি আমার পাশে আম্মু এটা আমি বুঝতেই পারিনি আমি ওকে বিভিন্নভাবে বললাম যে তুমি ফোন বন্ধ করে রেখেছো কেন আর তুমি আসল ঘটনা না জেনে ওখান থেকে চলে আসলি কেন তুমি তো জানো না ওখানে কি হয়েছিল তুমি না জেনে হুটহাট করে এভাবে রাগ করার কি আছে। ভালবাসার তাজমহল।

আমাকে আম্মু টান দিয়ে বলল মাথা ঠান্ডা করে কথা বল আর রাগ করিস না সব ঠিক হয়ে যাবে আম্মু রান্নার কাজে চলে গেল আমি বললাম তুমি ফোন বন্ধ করে রাখছো কেন মুনিয়া বলছে আমি কার জন্য ফোন ব্যবহার করব যে আমায় ছেড়ে অন্য মেয়েদের সাথে সবসময় ফস্টি-নস্টি তো ব্যস্ত থাকে তার জন্য আমি বললাম দেখো তুমি কিন্তু লিমিট ক্রস করতেছো তুমি আসলে সত্যি ঘটনাটা জানো না যার জন্য তুমি আমাকে অবিশ্বাস করতেছ এটা কিন্তু আমাদের ভালোবাসার পলিসি ছিল না এটা কিন্তু কখনো আমি তোমার থেকে কল্পনা করিনি যে তুমি আমাকে অবিশ্বাস কোরবে।

আরো পড়ুনঃ  ভালবাসার তাজমহল পর্ব -২

ভালবাসার তাজমহল পর্ব-২

মুনিয়া বলল অবিশ্বাস তো তুমি করতে বাধ্য করছো আমি বললাম না আমি করতে বাধ্য করি নি বরং তুমি আমাকে শুধু শুধু অবিশ্বাস করে যাচ্ছ আমি ওই মেয়ে কিংবা তুমি ব্যতীত অন্য কারো সাথে আমার কোন রিলেশন নেই ওরা শুধুমাত্র মশকারি করার জন্য এমনটা করেছে তুমি তো পুরো ঘটনাটা জানো নি তাই তুমি বুঝতে পারোনি ওই মেয়ে তুমি যখন রাগ করে চলে এসেছো তখন নিজের ভুল বুঝতে পারছে ও চেয়েছিল তোমাকে সারপ্রাইজ দেয়ার জন্য কিন্তু তুমি রাগ করে ওখান থেকে উঠে চলে এসেছো ওই মেয়েটি আমার ক্লাসের ফ্রেন্ড। ভালবাসার তাজমহল

মুরিয়া বললো ঠিক আছে আমাকে তো তোমার প্রয়োজন নেই তোমার তোমার এক ফ্রেন্ড আছে আমি বললাম দেখো তুমি কিন্তু লিমিট ক্রস করছো তুমি জানো না তোমার জন্য আমি গত চার বেলা না খেয়ে আছি তুমি আমার শরীরের অবস্থা দেখতে পাচ্ছ না তাই তুমি আমায় বলছো আমি কথা বলতে পারছি না আমার প্রচুর খিদেঅনুভব হচ্ছে আমি আর দাঁড়াতে পারছি না আমার প্রচুর কষ্ট হচ্ছে তুমি কেন আমার সাথে এভাবে করলে? ভালবাসার তাজমহল

আরো পড়ুনঃ  ভালবাসার তাজমহল পর্ব-৬

মুনিয়া বলল আপনার তো অনেক বন্ধু আছে তাদের সাথে থাকেন তাদের সাথে কথা বলেন তাহলেই তো হচ্ছে তখন আমার মেজাজ প্রচুর গরম হয়ে যাচ্ছে একে তো আমার পেটে অনেক বেশি খিদার যন্ত্রণা তারপরে গত এক দিন ওর সাথে কথা না বলতে পারা এবং ওর জন্য অনেকক্ষণ চিন্তা করার পর যখন ওর এই কথাগুলো আমার এদিকে আসে তখন প্রচুর রাগ হয়।

তাৎক্ষণিকভাবে মুনিয়াকে বললাম আচ্ছা তুমি কি সত্যি আমাকে কখনো ভালবাসনি নাকি শুধু ভালোবাসার অভিনয় করেছ যদিও একটা মানুষকে তুমি ভালবাসতে তাহলে দু’বছরের তুমি এই মানুষটাকে এইটুকু চিনতে পারোনি এটা কিভাবে সম্ভব আমি তো তোমাকে প্রথম এক মাসে চিনে ফেলেছি তুমি আমাকে দুই বছর চিনতে পারোনি আমি কেমন আমি তোমার যোগ্য না তাহলে? ভালবাসার তাজমহল

এই গল্পের পরবর্তী পর্বগুলো পড়তে এখানে ক্লিক করুন।